লাইভে স্কারলেটের মাথায় কী ঢাললেন স্বামী! (What did the husband put on Scarlett’s head live?)

লাইভে স্কারলেটের মাথায় কী ঢাললেন স্বামী! (What did the husband put on Scarlett’s head live?)

এ বছরের এমটিভি সিনেমা অ্যান্ড টেলিভিশন অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠিত হলো অনলাইনে। সেদিন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পুরস্কারটি গ্রহণ করেন হলিউড তারকা স্কারলেট ইয়োহানসন। এ অনুষ্ঠানের একটি ভিডিও ভাইরাল হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে অনলাইনে।

সেখানে দেখা গেছে, পুরস্কারের স্মারক হাতে বক্তৃতা দিচ্ছেন স্কারলেট। আর হঠাৎ করে সেই ফ্রেমে ঢুকে স্কারলেটের মাথায় এক বাটি সবুজ আঠাল তরল ঢাললেন তাঁর জীবনসঙ্গী কলিন জোস্ট। এটাই ছিল ইউটিউবে সপ্তাহের সবচেয়ে মজার ঘটনা।
জেনারেশন অ্যাওয়ার্ড হাতে এই স্কারলেট বলেছিলেন, ‘আমার বয়স ৩৬, আর অভিনয়ের ক্যারিয়ার ৩০ বছরের। বলা যায়, বুদ্ধি হওয়ার পর থেকে জীবনের প্রায় সবটাই আমি ঢেলে দিয়েছি অভিনয়ে। পরিচালক, প্রযোজক, সহশিল্পী, কলাকুশলী, মেকাপ আর্টিস্ট—সবাইকে নিয়েই আমার ক্যারিয়ার। তাঁদের ছাড়া এই পুরস্কার আজ আমি পেতাম না। তাই এই পুরস্কার কেবল আমার নয়, শত শত বছর ধরে যাঁরা সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে তাঁদের সৃজনশীলতা আর পরিশ্রম ঢেলেছেন, তাঁদের সবার। আমি কেবল সেটা কাঁধে করে টানব।’

বক্তৃতা চলছিল। মহামারি শুরু হওয়ার পর বাড়িতে বসে লাইভে কত না মজার মজার ঘটনা দেখা যায়। সেখানে স্কারলেটের ঘরে রয়েছেন বিখ্যাত ‘স্যাটারডে নাইট লাইভ’ অনুষ্ঠানের লেখক, উপস্থাপক ও কমেডিয়ান কলিন জোস্ট! মজা না হলে চলবে কেন?
স্কারলেটের বক্তৃতার মধ্যে তিনি এক বাটি সবুজ আঠাল তরল (গ্রীন গু) এনে ঢেলে দেন স্কারলেটের গায়ে। ম্যারেজ স্টোরি ও জোজো র‍্যাবিট সিনেমা দুটোর জন্য দুবার অস্কারে মনোনয়ন পাওয়া এই অভিনেত্রী তখন বলেন, ‘এ তুমি কী করলে!’ উত্তরে কলিন বলেন, ‘এভাবেই আমি এমটিভির সঙ্গে আঠার মতো যুক্ত হলাম! দাঁড়াও, গামছা এনে দিচ্ছি। রাগ কোরো না, লাভ ইউ।’

সম্প্রতি গোল্ডেন গ্লোবের সমালোচনা করেও আলোচনায় উঠে এসেছিলেন স্কারলেট ইয়োহানসন। গোল্ডেন গ্লোবে পাঁচবার মনোনয়ন পাওয়া স্কারলেট বলেছিলেন, হলিউড ফরেন প্রেস অ্যাসোসিয়েশনের (এইচএফপিএ) এক সদস্য তাঁকে যৌন হয়রানিমূলক ও লিঙ্গ বৈষম্যমূলক প্রশ্ন করেছিলেন। এ আচরণের বিচার চেয়ে চিঠিও দিয়েছেন তিনি।
২০২০ সারৈর অক্টোবরে ‘গোপনে’ বিয়ে করেন স্কারলেট ও কলিন। করোনা মহামারির কারণে সীমিত পরিসরে দুই পরিবারের ঘনিষ্ঠজনদের নিয়ে বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এ বিয়ে উৎসর্গ করা হয়েছিল একটা মহান উদ্দেশ্যে।
আয়োজনের সার্বিক দায়িত্বে ছিল মার্কিন স্বাস্থ্য সংস্থা ‘সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন’। মহামারিকালে ‍বৃদ্ধদের সাহায্যের জন্য অনুদান সংগ্রহের লক্ষ্যে এ খবর প্রকাশের দায়িত্ব দেওয়া হয় ‘মিলস অন হুইলস’কে। এটি কলিনের প্রথম ও স্কারলেটের তৃতীয় বিয়ে।

২০০৮ সালে অভিনেতা রায়ান রেনল্ডসকে বিয়ে করেছিলেন স্কারলেট। পরে বিয়ে করেন ফরাসি উদ্যোক্তা রোমেন ডাউরিয়াককে। রোমেনের সংসারে একটি মেয়েও আছে স্কারলেটের।


Leave a Reply

Your email address will not be published.