সমকামিতা নিয়ে তুমুল বিক্ষোভ :- তুরস্ক(Violent protests against homosexuality: – Turkey)

সমকামিতা নিয়ে তুমুল বিক্ষোভ :- তুরস্ক(Violent protests against homosexuality: – Turkey)

সমকামিতা নিষিদ্ধ করতে ইস্তাম্বুল কনভেনশন থেকে বেরিয়ে গেলো তুরষ্ক, বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ!


তুরষ্কের নতুন পদক্ষেপ সম্পর্কে এরদোয়ানের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন বলেন, ইস্তাম্বুল কনভেনশনের মাধ্যমে সমকামীদের আশ্রয় দেওয়া হচ্ছে। সমকামীদের প্রতি সহমর্মিতা দেখানো হচ্ছে।যা তুর্কী সংস্কৃতির সাথে যায় না।তাই ইস্তাম্বুল কনভেনশন থেকে বেরিয়ে গেলো তুরষ্ক।
এরদোয়ান সরকারের নতুন এই সীদ্ধান্তের প্রতিবাদে তুরষ্কের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ চলছে।বিক্ষোভকারীদের দাবি, “আমরা পিছু হটব না, আমরা ভীত নই! সরকারকে নতুন সীদ্ধান্ত থেকে পিছু হটতে হবে”।

চলমান এই আন্দোলনের মধ্যেই বিক্ষোভকারীদের সাথে বাকবিতন্ডায় জড়ায় ইস্তাম্বুলের পুলিশ। একপর্যায়ে ধাওয়া দিয়ে তাড়িয়ে দেওয়া হয় এই আজব প্রাণি গুলোকে!

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান ইস্তাম্বুল কনভেনশন থেকে তুরস্ককে বের করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ১ জুলাই, ২০২১ থেকে তুরস্ক আর এই কনভেনশনে থাকবে না।

২০১১ সালে ইস্তাম্বুল কনভেনশন তৈরি হয়েছিল। তুরস্ক প্রথম এই কনভেনশনে স্বাক্ষর করেছিল। ইউরোপ এবং তুরস্কের মানুষ অসম্মানিত না হন, তার জন্য এই কনভেনশন তৈরি হয়েছিল।

গত মার্চ মাসে এরদোগান জানান, ওই কনভেনশন থেকে তারা বেরিয়ে আসবেন।

প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন জানান, ওই কনভেনশন সমকামীদের আশ্রয় দেওয়ার চেষ্টা করছে। সমকামীদের প্রতি সহমর্মিতা দেখাচ্ছে। সমকামিতা কোনো ভাবেই তুরস্ক মেনে নিতে পারবে না। তুরস্কের সংস্কৃতি এবং মূল্যবোধের সঙ্গে সমকাম বিষয়টি যায় না। সে কারণেই কনভেনশন থেকে বেরিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ১ জুলাই থেকে তা কার্যকর হবে।

তুরস্কের পার্লামেন্টে এই কনভেনশনের উপর দাঁড়িয়ে ২০১২ সালে নারীদের সুরক্ষা সংক্রান্ত একটি আইন তৈরি হয়েছিল।

বিরোধীদের একাংশের বক্তব্য, কনভেনশন থেকে বেরিয়ে এলে ওই আইনেরও আর কোনো মূল্য থাকবে না। তাদের বক্তব্য, যেহেতু পার্লামেন্টে আইন তৈরি হয়েছিল, ফলে কনভেনশন থেকে বেরিয়ে আসার সিদ্ধান্তও পার্লামেন্টে নিতে হবে।

তুরস্ক সরকার অবশ্য খুব স্পষ্ট করেই জানিয়ে দিয়েছে, নারী অধিকার, নারী সুরক্ষার বিষয়টি কোনভাবেই ছোট করে দেখবে না এতে আরো মর্যাদা বাড়াবে । কিন্তু কোনো ভাবেই সমকামীদের গুরুত্ব দেওয়া হবে না। তাদের প্রতি কোনো রকম সমবেদনা দেখানো হবে না।


Leave a Reply

Your email address will not be published.